বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:০৬ অপরাহ্ন

করোনা ভাইরাস
***   সবচেয়ে সাধারণ উপসর্গসমূহ   ***   জ্বর   ***   শুকনো কাশি   ***   ক্লান্তিভাব   ***   কম সাধারণ   ***   উপসর্গসমূহ   ***   ব্যথা ও যন্ত্রণা   ***   গলা ব্যথা   ***   ডায়রিয়া   ***   কনজাংটিভাইটিস   ***   মাথা ব্যথা   ***   স্বাদ বা গন্ধ না পাওয়া   ***   ত্বকে ফুসকুড়ি ওঠা বা আঙুল বা পায়ের পাতা ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়া
সংবাদ শিরোনাম :
কালিগঞ্জে আইন শৃংখলা, চোরাচালানসহ সমন্বয় কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত কলারোয়ায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ কালিগঞ্জে গাজী শওকাত নৌকা পাওয়ায় সহস্রাধীক মটর সাইকেলে আনন্দ র‍্যালী ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত পাইকগাছায় ১৮ বছরেও এমপিও হয়নি সরদার আবু হোসেন কলেজ: ২০ শিক্ষক কর্মচারী মানবেতার জীবন যাপন কালিগঞ্জে করোনা রোগীর সেবায় “ফ্রি অক্সিজেন সার্ভিস এর উদ্বোধন করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী কালিগঞ্জের পানিবন্দী পরিবারের মাঝে প্রেরণা’র খাদ্য সামগ্রী বিতরণ দুর্যোগ মোকাবেলায় আইওএম সাতক্ষীরার স্বেচ্ছাসেবক কমিটি গঠন জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক খালিদুর রহমানের ইন্তিকাল সাতক্ষীরার প্রত্যান্ত অঞ্চল কি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ! কালিগঞ্জে ১কেজি ৮’শ গ্রাম গাজাসহ একজনকে আটক করেছে পুলিশ
পাইকগাছায় ১৮ বছরেও এমপিও হয়নি সরদার আবু হোসেন কলেজ: ২০ শিক্ষক কর্মচারী মানবেতার জীবন যাপন

পাইকগাছায় ১৮ বছরেও এমপিও হয়নি সরদার আবু হোসেন কলেজ: ২০ শিক্ষক কর্মচারী মানবেতার জীবন যাপন

কৃষ্ণ রায়, পাইকগাছা (খুলনা) ॥
পাইকগাছার সোলাদানা ইউনিয়নে প্রতিষ্ঠার ১৮ বছরেও সরদার আবু হোসেন কলেজ এমপিও না হওয়ায় ২০ শিক্ষক কর্মচারী মানবেতার জীবন যাপন করছেন।
আবু হোসেন কলেজের অধ্যক্ষ শেখ ফারুক হোসেন জানান, দ্বীপবেষ্টিত উপকূলীয় চরাঞ্চল সোলাদানা ইউনিয়ন। এ ইউনিয়নটি অনেকটাই নদী ও খালদ্বারা বিস্তৃত। এ ইউনিয়নে ৪০ হাজারের বেশি মানুষের বসবাস। প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করেই এখানকার মানুষের বসবাস করতে হয়।  ইউনিয়নের শিক্ষা ব্যবস্থা অনুন্নত। এখানে রয়েছে ৪টি মাধ্যমিক, ২টি বালিকা বিদ্যালয়, ১টি মাদ্রাসা ও ১টি কলেজ। এখান থেকে দুই দশক আগেও অত্র ইউনিয়নের ছেলে-মেয়েদের উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা লাভের কোন সুযোগ ছিল না। দীর্ঘপথ পাড়ি দিয়ে যেতে হতো উপজেলা সদর সহ বিভিন্ন স্থানে। এলাকার ছেলে-মেয়েরা যাতে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার সুযোগ পায় সে লক্ষেই ২০০৩ সালে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সমাজসেবক, শিক্ষানুরাগী ও দানশীল ব্যক্তিদের সমন্বয়ে অত্র ইউনিয়নে ১৭ বিঘা জমির উপর একটি উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। ইউনিয়নের সাবেক প্রেসিডেন্ট সরদার আবু হোসেন এর নামে কলেজটির নামকরণ করা হয়। প্রতিষ্ঠানটি ২০০৩ সালে পাঠদান অনুমতি ও ২০০৯ সালে সরকারের সকল শর্ত পূরণ করে একাডেমিক স্বীকৃতি লাভ করে। প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠার পর হতে অধ্যবধি ছেলে-মেয়েদের উচ্চ শিক্ষা প্রদানে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখে আসছে। এখানে ছাত্র-ছাত্রীদের ভর্তি ও পাশের হার যথেষ্ঠ সন্তোষ জনক। প্রতিষ্ঠানটি প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ারপর সরকারিভাবে নতুন একটি দৃষ্টিনন্দন একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হয়। নতুন ভবন, প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন হলেও কর্মরত শিক্ষক কর্মচারীদের ভাগ্যের কোন পরিবর্তন হয়নি। ফলে প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক কর্মচারীরা বিগত ১৮ বছর ধরে মানবেতর জীবন-যাপন করছে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২২৮জন, শিক্ষক-কর্মচারী রয়েছে ২০জন। কর্মরত শিক্ষক কর্মচারীরা না পায় কোন বেতন ভাতা, না পায় সরকারি কোন সুবিধা। অনেকেই শিক্ষাকতার পাশাপাশি বিকল্প ছোট খাটো কাজ করে পরিবার পরিজন নিয়ে কোন রকমে জীবন-যাপন করছে। প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারী সহ এলাকাবাসীর একটাই কথা আর কতবছর অপেক্ষা করলে প্রতিষ্ঠানটি এমপিও হবে! এমপিও ভুক্তির বিষয়টি এখন অত্র এলাকার মানুষের প্রাণের দাবী। প্রতিষ্ঠানে কর্মরত প্রভাষক বজলুর রহমান বলেন, প্রতিষ্ঠানটি এমপিও ভুক্ত না হওয়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে দীর্ঘদিন মানবেতর জীবন-যাপন করছি। চাকুরির আগে জানতাম শিক্ষকতা একটি মহান পেশা। কিন্তু মহান এ পেশায় কর্মরত থেকে মানবেতর জীবন-যাপন করতে হবে এটা জানা ছিলনা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে আমাদের প্রাণের দাবী কলেজটি এমপিও ভুক্ত করা হোক। নব নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান গাজী বলেন, চর অঞ্চল হিসেবে পরিচিত অত্র ইউনিয়নের উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিস্তারে সরদার আবু হোসেন কলেজ গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখছে। প্রতিষ্ঠানটি এমপিও ভুক্ত করা জরুরী হয়ে পড়েছে। প্রতিষ্ঠানের সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শিয়াবুদ্দীন ফিরোজ বলেন, ১৭ বিঘা জমির উপর কলেজটি অত্র ইউনিয়নের ঐতিহ্য। প্রতিষ্ঠানে খেলার মাঠ, লাইব্রেরী, একাডেমিক ভবন, প্রশাসনিক ভবন ও শহীদ মিনার সহ লেখাপড়ার জন্য উন্নত পরিবেশ রয়েছে। কিন্তু দুঃখ জনক দীর্ঘদিনেও অত্র প্রতিষ্ঠানটি এমপিও ভুক্ত হয়নি। উপজেলার অন্যান্য কলেজ থেকে অত্র প্রতিষ্ঠানের দূরত্বও অনেক। প্রতিষ্ঠান ও এলাকার স্বার্থে কলেজটি এমপিও ভুক্ত করা জরুরী। সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান বাবু বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষা বান্ধব সরকার। শেখ হাসিনা সরকারের সময়ে দেশের কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অবহেলিত থাকবে না। সরকার শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষে প্রতিটি প্রতিষ্ঠান উন্নয়ন করছে। আশা করছি নির্বাচনী এলাকার সরদার আবু হোসেন কলেজটিও বর্তমান সরকারের সময়ে এমপিও ভুক্তি হবে। আমিএ ব্যপারে সর্বত্বক চেষ্টা করে যাচ্ছি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2020 www.satkhiranews24.com
Hosted By LOCAL IT