24 January 2018 , Wednesday
Bangla Font Download
সর্বশেষ খবর »

You Are Here: Home » অর্থ ও বাণিজ্য » আশাশুনিতে বিকাশ এজেন্ট অভিনব প্রতারনার শিকার

taka

জি এম মুজিবুর রহমান, আশাশুনি (সাতক্ষীরা) ঃ আশাশুনি ও কালিগঞ্জ সীমান্তে ব্যস্ততম চম্পাফুল-কালিবাড়ী বাজারে এক বিকাশ এজেন্ট অভিনব প্রতারণার শিকার হয়েছেন। প্রতারক গ্রাহক সেজে প্রতারণা করে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েগেছে।
বাজারে রাজলক্ষ্মী জুয়েলার্স এণ্ড টেলিকম-এ ফ্লেক্সি লোড, বিদ্যুৎ বিল, বিকাশসহ বিভিন্ন কাজ করা হয়ে থাকে। প্রতিষ্ঠানে দায়িত্ব পালনকারী চাম্পাফুল গ্রামের গোলাম মোস্তফার পুত্র দেলোয়ার হোসেন ১০ অক্টোবর সকালে যখন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছিলেন তখন সুযোগ সন্ধানী অজ্ঞাত প্রতারক সেখানে উপস্থিত হয়। সে বিপরীত বিকাশ নম্বর হতে এজেন্টের বিকাশ নম্বরে টাকা আনাবে বলে জানায়। নাম্বার প্রেরণের নিমিত্তে সেট থেকে মিস কল দেওয়ার কথা বলে দোকানের ব্যবহৃত বিকাশ এজেন্ট নম্বর ০১৭১৪৫৯৩৩২০ সম্বলিত মোবাইল সেটটি নেয়। কিছুক্ষণ সময় নিয়ে কাজ শেষে মিস কল দেয়া হয়েছে জানিয়ে সেটটি ফেরৎ দেয়। কিছু সময় বসে প্রতারক সুযোগ বুঝে কেটে পড়ে। সন্দেহ হওয়ায় দেলোয়ার মোবাইল ব্যালেন্স চেক করে দেখেন ৫০ হাজার টাকা নেই। অনুসন্ধান করে দেখা যায় প্রতারক ০১৭৯০৭২২৮৯২ ও ০১৮৫৫২৮২৫৮৯ নম্বরে ২৫ হাজার টাকা করে ৫০ হাজার টাকা ট্রান্সফর করে নিয়েছে। এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট থানায় সাধারণ ডায়রি (২৯৭ তাং ১০/১০/১৪) করা হয়েছে। প্রতারক খুবই সতর্কতার সাথে তার কাজ সেরেছে। প্রত্যেক বিকাশ নম্বরের জন্য পাসওয়ার্ড বা গোপন নম্বর থাকে। এটি সে কি করে জেনেছিল। হয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কেউ অথবা এজেন্টের অতীব নিকচবর্তী কারও থেকে এটি ফাঁস করা হয়েছে। প্রতারক চক্রটির সন্ধান বের করা এবং ঘটনার একটি সুন্দর নিস্পত্তি হওয়া দরকার। একেক সময় একেক ভাবে প্রতারণার কর্মকাণ্ড ঘটে চলেছে। বিকাশ কর্তৃপক্ষ ও মোবাইল কোম্পানীরও সার্বিক সহযোগিতা দেয়া দরকার। কিন্তু এসব ক্ষেত্রে তাদেরকে সেভাবে সহযোগিতা দেয়া হয়না বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে। ফলে এজেন্ট ও সাধারণ বিকাশ একাউন্ট হোল্ডাররা হতাশ ও চিন্তিত হয়ে পড়েছেন।

Use Facebook to Comment on this Post

Leave a Reply

Editor : ISHARAT ALI, 01712651840, 01835017232 E-mail : satkhiranews24@yahoo.com, rangtuli80@yahoo.com


Site Hosted By: WWW.LOCALiT.COM.BD