24 January 2018 , Wednesday
Bangla Font Download
সর্বশেষ খবর »

You Are Here: Home » পরিবেশ, সাতক্ষীরা সদর » নদী ভাঙ্গনে বিলিন হয়ে যাচ্ছে বন বিভাগ সাতক্ষীরা রেঞ্জের ষ্টেশন অফিস সহ অন্যান্য স্থাপনা


অরিবন্দ মৃধা, নিজস্ব প্রতিনিধি ঃ
সুন্দরবন সংলগ্ন খোলপেটুয়ার নদীতে প্রায় ৮ শত গজ এলাকা জুড়ে আগ্রাসী ভাঙ্গন। বিলিন হয়ে যাচ্ছে বনবিভাগ সাতক্ষীরা রেঞ্চের বুড়িগোয়ালিনী ষ্টেশন অফিসের স্থাপনা সমুহ। হুমকীর মুখে নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি, নীলডুমুর ৩৪ বিজিবি কার্যালয়, শিক্ষা, ব্যবসায় প্রতিষ্ঠিান, বেড়ি-বাঁধ সহ জনবসতি। ওয়াপদা কর্তৃপক্ষ সহ সংশ্লিষ্টদের নিঃক্রিয়তায় এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশংখা, কর্তৃপক্ষের জরূরী হস্তক্ষেপ কামনা।

সুন্দরবন সংলগ্ন খোলপেটুয়া ও চুনার নদীর সংগমস্থলে পশ্চিম সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্চ অফিস থেকে নীলডুমুর খেয়াঘাট পর্যন্ত প্রায় ৮ শত গজ এলাকা জুড়ে প্রবল স্রোত ও নদী ভাঙ্গনে ইতো মধ্যে বুড়িগোয়ালিনী ফরেষ্ট ষ্টেশনের বি এম ব্যারাক সহ ৩টি স্থাপন নদী গর্ভে বিলিন হয়েছে। ওয়াপদার বাহিরে বর্তমান অফিস, রেষ্ট হাইজ সহ আরও ৩টি স্থাপনা হুমকীর মুখে। যে কোন সময়ে নদী-ভাঙ্গনে বিলিন হয়ে যেতে পারে এগুলি। সরজমিনে তথ্য সংগ্রহ কালে ষ্টেশনের ডেপুটি রেঞ্জার হাসান করীর জামান ২ মাস পূর্বে বি এম ব্যারাক সহ বনবিভাগের তিনটি স্থাপনা নদী ভাঙ্গনে চলে গেছে। ভাঙ্গন আশংখায় ষ্টাফরা রাতে ঘুমাতে পারেনা। ৩ মাস পূর্ব থেকে ওয়াপদা কতৃপক্ষ্যের ৩/৪ হাজার জিও বালির বস্তা এই ষ্টেশনের চরে পড়ে আছে, অথচ কেন যে ভাঙ্গনে দেয়া হচ্ছে না সেটা জানিনা। এ ব্যাপারে শ্যামনগর পানি উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্ব প্রাপ্ত এস ও নিখিল রঞ্জন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, ওখানে ৫ কোটি টাকার টেন্ডার হয়েছে। টাকস্ফোর্স কমিটির অনুমোদন না থাকায় ঠিকাদার কাজ করছে না। উক্ত কাজের ঠিকাদার ঢাকা ওয়েল এ টি সি এর শাহাজাদা রাজীবের কাছে বিষয়টি জানার জন্য মোবাইলে একাধিকবার চেষ্টা করেও কথাবলা সম্ভব হয়নি। এদিকে বনবিভাগের অফিস ছাড়াও বেশ কিছু দোকানপাট, ওয়াপদা-বেড়িবাঁধ, নীলডুমুর খেয়াঘাট, নৌ পুলিশ ফাড়ি, ৩৪ বিজিবি ব্যাটেলিয়ান কার্যালয়, ফরেষ্ট হাইস্কুল, প্রাথমিক বিদ্যালয় সহ বহু স্থাপনা ভাঙ্গনের কবোলে পড়ে ধ্বংস হয়ে যাওয়ার আশংখা করছে এলাকাবাসী। নীলডুমুর ৩৪ বিজিবি এর টু-আই সি আহাদুল ইসলাম জানান, এটা আমাদের অস্তিত্বের প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। যে কোন সময় ওয়াপদা ভেঙ্গে গেলে একাকার হয়ে যাবে। বিষয়টি ওয়াপদা কর্তৃপক্ষ ও ঠিকাদারকে আমাদের পক্ষ থেকে বার বার জানানো হয়েছে। বুড়িগোয়ালিনী ইউপি চেয়ারম্যান হাজী নজরুল জানান, ঠিকাদার টাকা আদায় করার জন্যে চাপ সৃষ্টি করে কাজ বন্ধ রেখেছে। ওয়াপদার এস ডি ই বিশ্বজিৎ বৈদ্য ঠিকাদারের গাফিলতির কথা স্বীকার করে জানান, আমরা একাধিক বার কাজ করানোর জন্য যথাযথ কর্তপক্ষের মাধ্যমে ঠিকাদার কে জানিয়েছি। সম্প্রতি বনবিভাগের অর্থায়ন সাপেক্ষে ৩৮২.১০ মিটার কাজের ওয়ার্ক ওয়ার্ডের হয়েছে।

Use Facebook to Comment on this Post

Leave a Reply

Editor : ISHARAT ALI, 01712651840, 01835017232 E-mail : satkhiranews24@yahoo.com, rangtuli80@yahoo.com


Site Hosted By: WWW.LOCALiT.COM.BD