19 January 2018 , Friday
Bangla Font Download
সর্বশেষ খবর »

You Are Here: Home » সাতক্ষীরা সদর » সাতক্ষীরায় এসিড নিক্ষেপ ও হত্যার হুমকি দেয়ায় অভিযোগে সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে এক কলেজ ছাত্রীর সংবাদ সম্মেলন


সাতক্ষীরা প্রতিনিধি।।
সাতক্ষীরায় আপোষ মিমাংশায় বিয়ে বিচ্ছেদ হওয়ার পরও এক প্রতারক তার সাবেক স্ত্রী এক কলেজ ছাত্রীকে এসিড নিক্ষেপ ও হত্যার হুমকি দেয়াসহ তারা বাবা-মাকে মিথ্যে মামলায় হয়রানি করার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সোমবার বিকালে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন কলারোয়া উপজেলার বড়ালী গ্রামের নুর হোসেনের মেয়ে কলারোয়া সরকারি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী মোছাঃ মোমেনা খাতুন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, কলেজে লেখাপড়ার সুবাদে গত বছর কলারোয়া উপজেলার লোহাকুড়া গ্রামের গোলাম মোস্তফার ছেলে মুস্তাফিজুর রহমান মুন্নার সাথে পরিচয় সূত্রে আমার প্রেমের সর্র্ম্পক গড়ে উঠে। একপর্যায় যশোর কোর্টে ৫ লাখ টাকা কাবিন মূলে এফিডেভিটের মাধ্যমে আমাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর কলারোয়ায় জনৈক জিয়াউর রহমানের ভাড়া বাড়িতে অমাকে নিয়ে গোপনে তিন মাস ঘরসংসার করতে থাকে। তখন মুন্নাকে তার বাড়িতে নিয়ে যেতে বললে সে বিভিন্ন ধরনের ছল চাতুরি করেত থাকে। পরবর্তীতে জানতে পারি যে মুন্নার পূর্বের একটি বিয়ে রয়েছে এবং তার দু’টি সন্তান আছে। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর মুন্না আমাকে নির্যাতন করতে থাকায় আমি বাবার বাড়িতে চলে যেতে বাধ্য যাই। ইতিমধ্যে মুন্নার বড় বউ রেহানা খাতুন আমার নামে যশোর আদালতে একটি মামলা দায়ের করে এবং প্রায় ৬/৭ পূর্বে আমার বিরুদ্ধে একটি মিথ্যে সংবাদ সম্মেলন করে। আমি মুন্নার বিরুদ্ধে সাতক্ষীরার আদালতে যৌতুকের মামলা করি। পরে কলারোয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ স্বপনের মধ্যস্থায় কেউ কারো ক্ষতি করবে না মর্মে মিমাংশার শর্তে মুন্নার বড় বউ রেহানা খাতুন ও আমি কোর্ট থেকে মামলা প্রত্যাহার করে নেই এবং মুন্না আমাকে তালাক দেয়।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, মুন্না মিমাংশার শর্ত ভঙ্গ করে ঝিনাইদহা কোর্টে লোক দিয়ে আমার বাবা’র নামে মিথ্যে একটি মামলা করে তাকে এক মাস জেল খাটিয়েছে। জনৈক ফখরুলকে দিয়ে মাগুরা সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতে একটি মিথ্যে মামলা করায়। এছাড়া আমাদেরকে হয়রানি করার জন্য সাতক্ষীরার আদালতে একাধিক মিথ্যে মামলা করিয়েছে। কিছুদিন আগে মুন্না আমাদের বসতবাড়ি থেকে তিন লক্ষাধিক টাকা মূল্যের গাছ জোর করে কেটে নিয়ে গেছে। এঘটনায় আমি কোর্টে গাছ কাটার মামলা করলে মুন্না পাল্টা তার দোকান ভাংচুরের অভিযোগে আমাদের নামে কোর্টে মামলা করে। এঘটনার পর থেকে মুন্না মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমাকে এসিড মারার ও হত্যা করার হুমকি দিচ্ছে। এছাড়া আমার বাবা ও মাকে বিভিন্ন ভাবে ক্ষয়ক্ষতি করবে বলে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে।
তিনি আরো বলেন, আমরা চার বোন। আমাদের কোন ভাই নেই। সেকারনে আমাদের অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে মুন্না প্রভাবশালীদের সহায়তায় ক্ষতি করার অপকৌল প্রয়োগ করছে। যার কারনে মুন্নার ভয়ে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বর্তমানে আমি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। তিনি মুন্নার অবৈধ হুমকি-ধামকি ও নির্যাতন থেকে রক্ষা পেতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Use Facebook to Comment on this Post

Leave a Reply

Editor : ISHARAT ALI, 01712651840, 01835017232 E-mail : satkhiranews24@yahoo.com, rangtuli80@yahoo.com


Site Hosted By: WWW.LOCALiT.COM.BD